Bird Flu: বাংলাতেও হানা দিল বার্ড ফ্লু! ভাইরাসে আক্রান্ত ৪ বছরের এক শিশু, মানবদেহে কী ভাবে ছড়ায় এই ভাইরাস?

Bird Flu: মানুষের জন্য ঠিক কতটা বিপজ্জনক হতে পারে বার্ড ফ্লু ভাইরাস? 

 

হাইলাইটস:

  • ৪ বছরের এক শিশুর শরীরে দেখা দিল বার্ড ফ্লু
  • কিভাবে বার্ড ফ্লু ভাইরাসে সংক্রমিত হল শিশুটি?
  • কী কী উপসর্গই বা দেখা দিতে পারে?

Bird Flu: ফের বাড়ছে বার্ড ফ্লু-এর সংক্রমণ। এখনও পর্যন্ত এ দেশে এই নিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন দু’জন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) জানাচ্ছে, এ রাজ্যের ৪ বছরের এক শিশুর শরীরেও পাওয়া গিয়েছে ভাইরাসের স্ট্রেন। পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে যে, H9N2 বার্ড ফ্লু ভাইরাসের সংক্রামক প্রজাতির সংক্রমণ হয়েছে ওই শিশুটির শরীরে। ধুম জ্বরের সঙ্গেই প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট এবং পেটব্যথা হওয়ায় গত ফেব্রুয়ারি মাসেই শিশুটিকে ভর্তি করানো হয়েছিল হাসপাতালে। তারপর পরীক্ষা করে তার শরীরে মিলেছে বার্ড ফ্লু ভাইরাস।

We’re now on WhatsApp – Click to join

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)-র তরফে আরও জানা গিয়েছে যে, শিশুটির বাড়িতে হাঁস এবং মুরগির খামার ছিল। এবার সেখান থেকেই সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলেও মনে করা হচ্ছে। তবে শিশুটির পরিবারের আর কেউই এই ভাইরাসে সংক্রমিত নন। স্বাস্থ্য ভবন সূত্রে খবর, বার্ড ফ্লু সংক্রমণের পরে ওই শিশুটির ফুসফুসজনিতও একাধিক সমস্যা দেখা গিয়েছিল। তবে বর্তমানে শিশুটি সুস্থ আছে। তবে কী ভাবে তার শরীরে এই ভাইরাস এল তা এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি। 

সূত্রের খবর, শিশুটি উত্তরবঙ্গের বাসিন্দা। তার পরিবারের কেউ বা তার প্রতিবেশি কারও মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েনি। শিশুটির নাক এবং গলা থেকে নেওয়া নমুনা কলকাতার একটি ভাইরাস রিসার্চ সেন্টারে পরীক্ষা করে জানা গিয়েছে শিশুটির শরীরে বার্ড ফ্লু ভাইরাসের এইচ৯এন২ প্রজাতির সংক্রমণ হয়েছে।

উল্লেখ্য, এই নিয়ে ভারতে দ্বিতীয়বার মানবদেহে এইচ৯এন২ ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা মিলল। এর আগে প্রথম বার ২০১৯ সালে এক জনের শরীরে এই ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা গিয়েছিল।

We’re now on Telegram – Click to join

বার্ড ফ্লু মানুষের জন্য কতটা বিপজ্জনক?

বার্ড ফ্লু ভাইরাস হল একটি বিশেষ ধরনের ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস। এই ধরনের ইনফ্লুয়েঞ্জাকে বলে এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা। এর অনেক রকম প্রজাতি আছে, তবে সবগুলিই যে ভীষণ সংক্রামক বা মানবদেহে ছড়াতে পারে, তেমনটা নয়। এর আগে ভারতে যে ধরনের বার্ড ফ্লু ভাইরাস ছড়িয়েছিল, তার নাম H5N1 এবং H7N9। আর এখন H9N2 প্রজাতির সংক্রমণও ধরা পড়েছে। দেশের কয়েকটি রাজ্যে মৃত পাখিদের নমুনায় H5N1 ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের প্রজাতির খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল। মূলত পাখিরা এই ভাইরাসের বাহক।

আগে মনে করা হত, বার্ড ফ্লু ভাইরাস মানবদেহে ছড়াতে পারে না। কিন্তু ১৯৯৭ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রথম মানুষের শরীরে এই ভাইরাল স্ট্রেন চিহ্নিত করেছিল। মৃত পাখির দেহাবশেষের সংস্পর্শে এসেই নাকি মানবদেহে সেই ভাইরাল স্ট্রেন ছড়িয়েছিল বলেই মনে করা হয়েছিল। 

Read more:- আবারও বার্ড ফ্লু দেখা দিচ্ছে, ডিম এবং মুরগির মাংস খাওয়া থেকে সতর্ক হন

চিকিৎসকদের মতে, মানুষের শরীরে একবার যদি এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা বা বার্ড ফ্লু ভাইরাস ঢোকে তবে করোনা ভাইরাসের মতোই দ্রুত বিভাজিত হতে পারে। এমনকি উপসর্গও করোনা সংক্রমণের মতোই। জ্বর, শ্বাসকষ্ট এবং পেটব্যথার মতো একাধিক উপসর্গ দেখা দিতে পারে। হতে পারে চোখের সংক্রমণও। চিকিৎসকদের ধারণা, বার্ড ফ্লু ভাইরাস আক্রান্তের থুতু বা লালার মাধ্যমে সুস্থ মানুষের শরীরেও ছড়িয়ে পড়তে পারে এই ভাইরাস। 

এইরকম স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রতিবেদন পেতে ওয়ান ওয়ার্ল্ড নিউজ বাংলার সাথে যুক্ত থাকুন।

Sanjana Chakraborty

Professional Content Writer

Leave a Reply

Your email address will not be published.