Toxic Girlfriend: আপনার প্রেমিকার মধ্যে যদি এই ৫টি লক্ষণ দেখেন তবে বুঝবেন তিনি একজন টক্সিক মহিলা, ফলে আপনার উচিত দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া

ভালোবাসা সবার জন্য মধুর নাও হতে পারে

হাইলাইটস:

•টক্সিক মানুষের সাথে ভালোবাসার সম্পর্কে জড়ানো খুবই মুশকিল

•প্রেমিকার টক্সিক হওয়ার লক্ষণ দেখলেই আগে দিয়ে সাবধান হয়ে যান

•একজন টক্সিক মহিলার মধ্যে যে লক্ষণগুলি থাকবে, সেগুলি দেখে নিন

Toxic Girlfriend: এখনকার উন্নত সমাজে একজন সত্যিকারের ভালোবাসার মানুষ পাওয়া যেন ভাগ্যের ব্যাপার। সবার কপালে যা থাকে না। অনেকে তাদের ভালোবাসার মানুষের সাথে সারাটা জীবন হাসি-খুশিতে কাটিয়ে দেন অথবা আবার অনেকের মাঝ পথেই তাদের দুজনের রাস্তা আলাদা হয়ে যায়। উন্নত সমাজ এখন বিষাক্ত মানুষে যে ভরে গেছে তার প্রমাণ আমরা পেতেই থাকি। আপনি যদি কোনও বিষাক্ত মহিলার (Toxic Girlfriend) কবলে পড়েন তবে সেখান থেকে উদ্ধার করতেই আজকে আমাদের এই প্রতিবেদন। যে লক্ষণগুলি দেখলে সচেতন হওয়া উচিত, সেগুলি হল –

১. উচ্চস্বরে চিৎকার করেন:

সবার গলার আওয়াজ একরকম হয় না। কেউ মৃদু স্বরে কথা বলেন তো আবার কেউ উচ্চস্বরে। তবে এখনকার যুগে যদি আপনি মৃদু স্বরে কথা বলতে থাকেন তবে সমাজের খারাপ মানুষরা আপনার মাথায় উঠে বসবে। তা বলে এমনও না যে আপনি উচ্চস্বরে চিৎকার করে অন্যকে ছোট করবেন। আপনার প্রেমিকা যদি এইরকম উচ্চস্বরে ছোট ছোট ব্যাপারে চিৎকার করতে শুরু করেন তবে আপনাকে এখন থেকেই সচেতন হতে হবে। তাঁর এমন ব্যবহার আমাদের সম্পর্কে একটি খারাপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করবে। ফলে ভবিষ্যতের কথা ভেবে এখন থেকে কিছু সাবধানতা অবলম্বন করুন।

২. আপনাকে সব বিষয়ে ছোট করে:

এখনকার দিনে সমাজে এমন একশ্রেণির মানুষ আছেন যারা সবজান্তা। তাদের আর দরকার পড়ে না অপরদিকের মানুষের থেকে কিছু জানার বা শেখার। তারা মনে করেন তারা সব জানেন। এইরকম মানসিকতা সম্পন্ন লোকজনই অপর দিকের মানুষকে ছোট করেন তাও সামান্য ছোট ছোট বিষয়ে। আপনি যদি আপনার প্রেমিকার মধ্যেও এই বিশেষ লক্ষণটি দেখতে পান তবে ‘সাবধান’, উনি একজন টক্সিক মানুষ। কারণ এইরকম মানুষের সাথে সারা জীবন কাটানোর আগে আবারও আপনার সিদ্ধান্ত যাচাই করে নিন।

৩. প্রচন্ড অহংকারী:

অহংকারই যে পতনের অনিবার্য কারণ তা আমরা প্রত্যেকেই জানি। এটি হল ভগবান শ্রীকৃষ্ণের বাণী। অহংকারী মানুষরা সমাজের জন্য সত্যিই বিষাক্ত। আপনার প্রেমিকার মধ্যেও যদি খারাপ অভ্যাসটি দেখতে পান তবে কিন্তু আপনারই বিপদ। কারণ সারাজীবন তাঁর উচ্চাকাঙ্ক্ষী স্বপ্ন শুনতে শুনতে আপনি নিজেই নিজের ব্যক্তিত্ব হারিয়ে ফেলবেন। তখন আর আপনাদের সম্পর্কে ভালোবাসা বলে কোনও বস্তু থাকবেই না। ফলে আমরা পরামর্শ দেবো এখন থেকেই সাবধান হন। এবং চেষ্টা করুন তাঁকে বাস্তবতার সাথে পরিচয় করাতে।

৪. সে একজন লোভী মানুষ:

সমগ্র পৃথিবী এখন লোভী মানুষে ভরে গেছে। অনেকই এখন ভালোবাসাকেও টাকা দিতে কিনতে চাইছেন। তবে যাই বলুন মশাই টাকা দিতে সব জিনিস কিনতে পারলেও ভালোবাসা আপনি কিনতে পারবেন না। কিন্তু অনেক মহিলাই আছেন যারা আপনার সাথে সম্পর্কে এনেছেন আপনার মূলধন দেখে। আপনি যদি আপনার প্রেমিকার মধ্যে এইরকম কোনও লক্ষণ দেখতে পান তবে ‘খবরদার’ আপনি মস্ত বড়ো ভুল করতে চলেছেন। কারণ আপনার যতদিন টাকা থাকবে ততদিনই সেও আপনার সাথে থাকবে, টাকা ফুরিয়ে গেলেই পাখি উড়ে যাবে অন্য বাসায়।

৫. সম্পর্কে তৃতীয় ব্যক্তির প্রবেশ:

এখনকার দিনে সত্যিকারের ভালোবাসা পাওয়া যেন দুর্লভ বস্তু। আপনার অজান্তেই আপনার সম্পর্কে যে এখন তৃতীয় ব্যক্তি প্রবেশ করে ফেলেছে তা আপনার বোঝার উপায় নেই। আপনার প্রেমিকা আপনার সাথে সাথে অন্য আরেকজনের সাথে প্রেমে মত্ত থাকেন। তবে একথা আপনাকে কিছুতেই জানাতে চাইছে না সে। কিন্তু আপনি কিছু তো একটা সন্দেহ করছেনই এই ব্যাপারে। কারণ মিথ্যে কোনোদিন চাপা থাকে না। আপনার প্রেমিকা যে একজন টক্সিক মহিলা তা এতদিনে আপনি জেনেই গেছেন। ফলে এবার সময় এসেছে সঠিক পদক্ষেপ নেওয়ার। সম্পর্ক করার আগে একে অপরকে ভালো করে বুঝে তারপরই সম্পর্কে জড়াবেন।

এইরকম সম্পর্ক বিষয়ক প্রতিবেদন পেতে ওয়ান ওয়ার্ল্ড নিউজ বাংলার সাথে যুক্ত থাকুন। 

Sanjana Chakraborty

Professional Content Writer

Leave a Reply

Your email address will not be published.