ডিমেনশিয়া এক ভয়াবহ অসুখ! স্মৃতি মুছে যাওয়ার আগেই যথাযথ ব্যবস্থা নিন

আপনার স্মৃতি দিয়ে কী আপনার প্রিয়মানুষদের সাথে কাটানো সুন্দর মুহূর্তগুলি মুছে যাচ্ছে?

ডিমেনশিয়া এক ভয়াবহ অসুখ। যে কেউ ডিমেনশিয়ায় আক্রান্ত হতে পারেন। ভারতে প্রায় ৪০ লক্ষ মানুষ ডিমেনশিয়া সম্পর্কিত অসুখে ভুগছেন। বিশ্বে ভুগছেন প্রায় ৫ কোটিরও বেশি মানুষ। নিষ্ঠুর এই অসুখে ধীরে ধীরে রোগীর সমস্ত স্মৃতি মুছে যেতে থাকে। খুব নিকটজনকেও মনে রাখতে পারেন না রোগী। স্মৃতি মুছে যাওয়ার থেকে খারাপ আর কিছুই হয় না। এবার জীবনযাত্রায় কয়েকটি বদল করলেই এই রোগ থেকে বাঁচাতে পারবেন।

বয়সকালে তো মানুষ কিছু জিনিস ভুলবেনই। স্মৃতির পাতা থেকে আলগা হতে থাকবে সব কিছু। আর এটি খুবই স্বাভাবিক। তবে মাথায় রাখবেন যে, স্মৃতিভ্রম কিন্তু জটিল অসুখ। তাই হঠাৎ করেই ছোটখাটো কোনও কিছু ভুলতে শুরু করলে অবশ্যই সতর্ক হন। এই ভয়াবহ রোগটির নাম ডিমেনশিয়া। প্রথম থেকেই সতর্ক হন এই রোগ প্রতিরোধে।

এই রোগের উপসর্গগুলি হল কেউ কেউ নিজের সন্তানকেও চিনতে পারেন না। ভয়ঙ্কর এক অসহায় পরিস্থিতি তৈরি হয়। শুধু তাই নয়, রোগীর মস্তিষ্কের অন্যান্য বৈশিষ্ট্যও লোপ পেতে শুরু করে। টয়লেট যাওয়া, খাবার খাওয়ার মতো সাধারণ কাজগুলোও আর রোগী নিজের থেকে করে উঠতে পারেন না। সম্পূর্ণভাবে অন্যের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েন।

ডিমেনশিয়া রোগটি খুবই জটিল। তাই এই রোগ থেকে বাঁচার উপায় আপনার জেনে রাখা দরকার। স্বাস্থ্য সম্মত জীবনযাপন করলেই এই অসুখ প্রতিরোধ সম্ভব। প্রতিরোধের উপায়গুলি হল:

১. স্বাস্থ্যকর খাবার খান:

আট থেকে আশি আমাদের সকলের স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া উচিত। বাইরের খাবার যথাসম্ভব এড়িয়ে চলুন। বাইরের জাঙ্ক ফুড, অতিরিক্ত তেল এবং মশলাজাতীয় খাবার থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন। বরং খেতে পারেন সুষম আহার। টাটকা সবজি, ফল ইত্যাদি বেশি করে খান। এছাড়া প্রোটিন ও কার্বোহাইড্রেটের সমাঞ্জস্য বজায় রাখতে হবে। তবেই সমস্যার সমাধান করতে পারবেন।

২. ব্যায়াম করুন:

প্রতিদিন ব্যায়াম না করলে ডায়াবেটিস, ওজন বেড়ে যাওয়ার মতো রোগ হতে পারে। এর থেকে ডিমেনশিয়া রোগে আক্রান্ত হওয়া অনেকাংশে সম্ভব। তাই এই পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই করার জন্য দিনে অন্ততপক্ষে ৩০ মিনিট ব্যায়াম অবশ্যই করতে হবে। এছাড়া প্রাণায়ামও করতে পারেন।

৩. ওজন কমান:

স্বাভাবিকের চেয়ে ওজন বেশি থাকলে টাইপ ২ ডায়াবেটিস ও হাই ব্লাডপ্রেসার হতে পারে। এবার এই দুই অসুখ কিন্তু স্মৃতিভ্রমের কারণ হতে পারে। সেই কারণে যতটা পারবেন ওজন কমান। অন্তত ৫ থেকে ১০ শতাংশ ওজন কমানোর চেষ্টা করতে হবে।

৪. মদ্যপান নয়:

মদ্যপানের ফলে ডিমেনশিয়ার সমস্যা বহুগুন বাড়তে পারে। কারণ এই পানীয় স্ট্রোক থেকে শুরু করে হার্টের রোগের আশঙ্কা বাড়ায়। তাই আপনাকে মদ্যপান থেকে দূরে থাকতে হবে। তবেই নিজের মঙ্গল করতে পারবেন।

৫. ধূমপান নয়:

আপনি যদি ধূমপানে আসক্ত হন তবে এখনই বন্ধ করুন। ধূমপান স্ট্রোক, হার্টের রোগের প্রধান কারণ। সেখান থেকে হতে পারে ডিমেনশিয়া রোগ। তাই এই অসুখ প্রতিরোধ করতে আপনাকে অবশ্যই ধূমপান থেকে বহুদূরে থাকতে হবে।

এইসব পদ্ধতি অবলম্বন করে দেখুন, ডিমেনশিয়া রোগ থেকে মুক্তির উপায় খুঁজে পাবেন।

এইরকম আরও স্বাস্থ্য সংক্রান্ত প্রতিবেদন পাওয়ার জন্য ওয়ান ওয়ার্ল্ড নিউজ বাংলার সাথে যুক্ত থাকুন।

Sanjana Chakraborty

My name is Sanjana Chakraborty. I'm a content writer. Writing is my passion. I studied literature, so I love writing.

Leave a Reply

Your email address will not be published.