Reason Behind Black lips: আপনার ঠোঁট যদি কালো হয়ে যাচ্ছে, তাহলে জেনে নিন এর পেছনের বড় কারণ

Reason Behind Black lips: ঠোঁট কালো কেন হয়, জেনে নিন ঠোঁট কালো হওয়ার কারণ ও যত্নের পদ্ধতি

হাইলাইটস:

  • প্রায়শই ঠোঁট কালো হয়ে যাওয়া, যাকে ঠোঁটের হাইপারপিগমেন্টেশনও বলা হয়।
  • এমন একটি অবস্থা যার ফলে ঠোঁট তাদের স্বাভাবিক রঙের চেয়ে কালো হয়ে যায়।
  • এর পেছনের কারণ হতে পারে অতিরিক্ত সূর্যালোকের সংস্পর্শে আসা, ধূমপান, পানিশূন্যতা, হরমোনের পরিবর্তন এবং কিছু ওষুধ বা অ্যালার্জি সেবন।

Reason Behind Black lips: প্রায়শই ঠোঁট কালো হয়ে যাওয়া, যাকে ঠোঁটের হাইপারপিগমেন্টেশনও বলা হয়, এমন একটি অবস্থা যার ফলে ঠোঁট তাদের স্বাভাবিক রঙের চেয়ে কালো হয়ে যায়।

We’re now on Whatsapp – Click to join

তোমার ঠোঁটও কালো কেন?

যদি আপনার ঠোঁটও কালো হয়ে যায় তাহলে এর পেছনে অনেক কারণ থাকতে পারে। এই কারণগুলির মধ্যে একটি ঠোঁটের হাইপারপিগমেন্টেশন নামেও পরিচিত। যদিও এই সমস্যা যেকোনো বয়সেই হতে পারে। এর পেছনের কারণ হতে পারে অতিরিক্ত সূর্যালোকের সংস্পর্শে আসা, ধূমপান, পানিশূন্যতা, হরমোনের পরিবর্তন এবং কিছু ওষুধ বা অ্যালার্জি সেবন। যাইহোক, কালো ঠোঁট সাধারণত একটি গুরুতর চিকিৎসা অবস্থা নয়। কিন্তু কালো ঠোঁটকে আবার গোলাপি করার জন্য কিছু টিপস আছে যা আপনার অবশ্যই একবার প্রয়োগ করা উচিত।

ঠোঁট কালো হওয়ার অনেক কারণ থাকতে পারে-

১. হরমোনের পরিবর্তন – গর্ভাবস্থায় বা মেনোপজের সময় মহিলারা যে হরমোনের ভারসাম্যহীনতা অনুভব করেন তার ফলেও ঠোঁট কালো হতে পারে।

২. ওষুধ – অ্যান্টিসাইকোটিকস এবং কেমোথেরাপির ওষুধ ঠোঁটকে হাইপারপিগমেন্ট করতে পারে এবং ঠোঁটকে কালো করতে পারে।

৩. চিকিৎসা অবস্থা – হেমোক্রোমাটোসিস, কুশিং সিন্ড্রোম এবং অ্যাডিসন ডিজিজও ঠোঁট কালো করে দিতে পারে।

৪. অ্যালার্জি – বিভিন্ন ধরনের লিপস্টিক, লিপবাম এবং টুথপেস্টের কারণে অ্যালার্জির কারণে ঠোঁট কালো হয়ে যেতে পারে।

৫. অ্যানিমিয়া – রক্তস্বল্পতা, শরীরে আয়রনের ঘাটতির কারণে সৃষ্ট একটি রোগ, ঠোঁটকে ফ্যাকাশে এবং শুষ্ক করে তুলতে পারে, তাদের কালো হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ায়।

৬. সংক্রমণ – যে কোনো ধরনের ছত্রাকের সংক্রমণ ঠোঁট কালো করে দিতে পারে।

৭. হাইপারপিগমেন্টেশন – এই অবস্থাটি ঘটে যখন ঠোঁট অত্যধিক মেলানিন তৈরি করে, যার ফলে ঠোঁটের রঙ গাঢ় হয়।

৮. ধূমপানের অভ্যাস – ধূমপান ঠোঁটকে বিষাক্ত রাসায়নিক এবং অন্যান্য ক্ষতিকারক পদার্থের সংস্পর্শে আনে যা ঠোঁটকে কালো করে।

৯. সূর্যের এক্সপোজার – সূর্যের আলোতে অত্যধিক এক্সপোজার ত্বকের ক্ষতি করতে পারে এবং মেলানিন উৎপাদন বাড়াতে পারে, যার ফলে ঠোঁট কালো হয়ে যেতে পারে।

১০. ডিহাইড্রেশন – ডিহাইড্রেশনের কারণে ঠোঁট ফাটতে পারে এবং শুষ্ক হয়ে যেতে পারে, তাদের কালো দেখায়।

১১. পুষ্টির অভাব – আমাদের শরীরে ভিটামিন বি এবং সি-এর মতো কিছু পুষ্টির অভাবও ঠোঁট কালো করতে পারে।

কালো ঠোঁটের সমস্যা রোধে কিছু উপায়-

  • ঠোঁটে হার্বাল ময়েশ্চারাইজার লাগান। আপনি চাইলে মৌমাছির মোমের সঙ্গে ফুড কালার মিশিয়ে বাড়িতেই তৈরি করতে পারেন।
  • ধূমপানের অভ্যাস ত্যাগ করুন, কারণ এটি ত্যাগ না করলে ঠোঁটের স্বাভাবিক রং আসতে পারে না।
  • ঠোঁট চিবানো বা চাটার অভ্যাস বন্ধ করুন।
  • আপনার শরীরকে সবসময় হাইড্রেটেড রাখতে হবে।
  • সবসময় ঠোঁটে ভালো লিপস্টিক লাগান এবং ছয় মাসের বেশি ব্যবহার করবেন না।
  • গোলাপের পাপড়ি ঠোঁটে ঘষে বা গ্লিসারিনে গোলাপের পাপড়ি মিশিয়ে লাগাতে পারেন।
  • রাতে ঘুমানোর আগে সর্বদা আপনার ঠোঁট থেকে লিপস্টিক মুছে ফেলুন এবং ঘুমানোর সময় নারকেল তেল দিয়ে ম্যাসাজ করুন।

এইরকম জীবনধারা সম্পর্কিত প্রতিবেদন পেতে ওয়ান ওয়ার্ল্ড নিউজ বাংলার সাথে থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.