Daily Hour-long Walks: শারীরিক, মানসিক সুস্থতার জন্য দৈনিক ঘন্টা-দীর্ঘ হাঁটা আলিঙ্গন করার ৬টি বাধ্যতামূলক কারণ জানুন

Daily Hour-long Walks: দৈনিক ঘন্টাব্যাপী হাঁটার জন্য ৬টি সেরা কারণ

হাইলাইটস:

  • হাঁটা শুধুমাত্র আপনার শরীরকে সহায়তা করে না, এটি আপনার মস্তিষ্কের জন্যও ভালো
  • হাঁটা একটি চমৎকার ব্যায়াম যা ক্যালোরি কমাতে এবং ওজন কমাতে সাহায্য করতে পারে
  • হাঁটাহাঁটি শরীরের বিভিন্ন কোষে অক্সিজেন সরবরাহ করে রক্ত ​​সঞ্চালন করে

Daily Hour-long Walks: দৈনিক ভিত্তিতে এক ঘন্টা হাঁটা একটি সাধারণ জিনিস নাও হতে পারে তবে এটি এমন কিছু যা আপনার জীবনে উল্লেখযোগ্য ইতিবাচক প্রভাব আনতে পারে।

১. উন্নত কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্য: প্রতিদিন গড়ে এক ঘন্টা হাঁটলে কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্য অনেক বেশি বাড়ানো যায়। এটি রক্তচাপ কমাতে, আপনার শরীরের কোলেস্টেরল কমানোর পাশাপাশি হার্টের পেশীগুলির উন্নতিতে সহায়তা করে। আপনি যখন বায়বীয় ক্রিয়াকলাপে নিযুক্ত হন, তখন কেবল এর কার্যকারিতাই বৃদ্ধি পায় না, তবে হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের মতো অসুস্থতার বিরুদ্ধে এর সুরক্ষাও বৃদ্ধি পায়।

২. ওজন ব্যবস্থাপনা এবং পেশীর স্বর: উদাহরণস্বরূপ হাঁটা একটি চমৎকার ব্যায়াম যা ক্যালোরি কমাতে এবং ওজন কমাতে সাহায্য করতে পারে। এটি একটি সুপরিচিত সত্য যে নিয়মিত শারীরিক কার্যকলাপের মাধ্যমে ক্যালোরির খরচ কার্যকরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায়; এক ঘন্টা দ্রুত হাঁটা স্বাস্থ্যকর খাবারের জন্য আপনার যতটা প্রয়োজন তত বেশি ক্যালোরি পোড়াতে সাহায্য করে। এছাড়াও, হাঁটতে যাওয়া উভয় পা, নিতম্বের পেশী টোনিং করতে কার্যকরী, সেইসাথে পেটের সমস্ত শরীর জুড়ে চর্বিহীন পেশীগুলির বিকাশের দিকে পরিচালিত করে।

৩. মেজাজ বৃদ্ধি এবং স্ট্রেস হ্রাস: আপনি আপনার নিয়মিত হাঁটা জাদুকর অনুভব করতে পারেন, বিশেষ করে যদি আপনি প্রকৃতিতে কিছু সময় কাটান। তাজা বাতাসের প্রশান্তিদায়ক প্রভাব এবং সূর্যালোকের উপস্থিতির সাথে একসাথে হাঁটার ফলে যে দোলনা ক্রিয়া হয় তা মস্তিষ্কের দ্বারা উৎপাদিত এন্ডোরফিন, রাসায়নিক পদার্থ নিঃসরণ করে যা আপনাকে আরও প্রফুল্ল এবং সুখী বোধ করতে সাহায্য করে। এটি চাপ, উদ্বেগ এবং এমনকি বিষণ্নতার মাত্রা কমাতে সাহায্য করতে পারে এবং শেষ পর্যন্ত একজনকে আরও স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করতে পারে।

We’re now on WhatsApp- Click to join

৪. উন্নত জ্ঞানীয় ফাংশন: সুতরাং, হাঁটা শুধুমাত্র আপনার শরীরকে সহায়তা করে না, এটি আপনার মস্তিষ্কের জন্যও ভালো। সুস্থতার জন্য ফাইল করা, গবেষণা ইঙ্গিত দেয় যে হাঁটাহাঁটি করা স্মৃতিশক্তি, মনোযোগের সীমা এবং সৃজনশীলতা বাড়াতে পারে। এটি মস্তিষ্কের প্রাপ্ত রক্তের পরিমাণ বাড়ায়, নতুন নিউরন গঠনে উৎসাহিত করে এবং প্রাথমিক সূচনা ডিমেনশিয়া হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করে।

We’re now on Telegram- Click to join

৫. ভালো ঘুমের গুণমান: দিনের বেলা সক্রিয় থাকা একজন ব্যক্তিকে ঘুম এবং জাগ্রততার স্বাভাবিক ছন্দ বজায় রাখতে সাহায্য করবে এবং এইভাবে রাতে স্বাভাবিক ঘুম-জাগরণ চক্রের ব্যাঘাত এড়াবে। যাইহোক, এটি সুপারিশ করা হয় যে আপনি সন্ধ্যায় এবং শোবার আগে কঠোর কার্যকলাপ থেকে বিরত থাকুন যাতে আপনার শরীর শিথিল হয়।

Read More- আপনি কি জানেন হাঁটা আমাদের শরীরের জন্য কতটা উপকারী? হাঁটার এই ৫টি উপকারিতা জেনে নিন/

৬. বর্ধিত শক্তির মাত্রা: হাঁটাহাঁটি শরীরের বিভিন্ন কোষে অক্সিজেন সরবরাহ করে রক্ত ​​সঞ্চালন করে, কার্যকরভাবে আপনাকে আরও সতেজ এবং জাগ্রত বোধ করে।

এইরকম আরও গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেদন পেতে ওয়ান ওয়ার্ল্ড নিউজ বাংলার সাথে যুক্ত থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.