Most Expensive Wedding: বিয়ের ৭ বছর পেরিয়ে গেলেও আজও এই বিয়ে আলোচনার বিষয়, জেনে নিন পুরো বিষয়টি

Most Expensive Wedding: ভারতের সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিয়েতে খরচ হয়েছিল ৫০০ কোটি টাকা, বিস্তারিত জানুন

হাইলাইটস:

  • বেঙ্গালুরুর প্যালেস গ্রাউন্ডে বিয়ের অনুষ্ঠান হয়
  • কাঞ্জিভরম শাড়ির দাম ছিল ১৭ কোটি টাকা
  • ৫০ হাজারের বেশি অতিথি উপস্থিত ছিলেন
  • ডিজাইনার নীতা লুল্লা শাড়িটি প্রস্তুত করেছিলেন

Most Expensive Wedding: ভারতে বিয়েতে জলের মতো টাকা খরচ করার প্রবণতা এখনও চলছে। মানুষ একে স্মরণীয় করে রাখতে কোনো কসরত ছাড়তে চায় না। ভারতের সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিয়ের তালিকায় অনেক নাম রয়েছে কিন্তু ২০১৬ সালে খনি ব্যবসায়ী এবং কর্ণাটক সরকারের প্রাক্তন বিজেপি মন্ত্রী জনার্দন রেড্ডির মেয়ের বিয়ে কে ভুলতে পারে। জনার্ধন রেড্ডি তার মেয়ের বিয়েতে পুরো ৫০০ কোটি টাকা খরচ করেছেন। নববধূ ১৭ কোটি টাকার শাড়ি এবং ৯০ কোটি টাকার গয়না পরেছিলেন। জেনে নিন বিশেষ কী ছিল এই বিয়েতে-

সাবেক মন্ত্রী মো জনার্ধন রেড্ডি তার মেয়ে ব্রাহ্মণী রেড্ডিকে বিয়ে করেছিলেন হায়দরাবাদ-ভিত্তিক ব্যবসায়ী বিক্রম দেব রেড্ডির ছেলে রাজীব রেড্ডির সাথে। ৬ই নভেম্বর ২০১৬ এ বিয়ে হয়েছিল। বিয়ের ৭ বছর পেরিয়ে গেলেও আজও এই বিয়ে আলোচনার বিষয়। এই বিয়েটি স্বপ্নের চেয়ে কম ছিল না যাতে পুরো ৫০০ কোটি টাকা খরচ হয়েছিল। এই বিয়ে শুধুমাত্র কর্ণাটকে নয়, গোটা দেশ ও বিশ্বে পালিত হয়েছিল।

কাঞ্জিভরম শাড়ির দাম ছিল ১৭ কোটি টাকা

কনে ব্রাহ্মণী তার বিয়েতে ১৭ কোটি টাকার শাড়ি পরেছিলেন। এটি খাঁটি সোনার তারের কাজ সহ একটি কাঞ্জীভরাম শাড়ি ছিল। নববধূর পরা গহনার মূল্য ছিল ৯০ কোটি টাকা। দেশে এমন বিয়ে আগে কখনো হয়নি বলে জানা গেছে। এমনকি দেশের সংসদেও বিয়ে নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়, উত্তর চাওয়া হয়।

৫০ হাজারের বেশি অতিথি উপস্থিত ছিলেন

৬ই নভেম্বর ২০১৬ তারিখে ব্রাহ্মণীর বিয়ে হয়েছিল। অতিথিদের পরিবহনের জন্য ২০০০টি ক্যাব এবং ১৫টি হেলিকপ্টার ভাড়া করা হয়েছিল। বেঙ্গালুরুর সমস্ত পাঁচ ও তিন তারকা হোটেলে রেড্ডি পরিবার প্রায় ১৫০০ রুম বুক করেছিল। জানিয়ে রাখি, পাঁচ দিনের বিয়েতে ৫০ হাজারেরও বেশি অতিথি উপস্থিত ছিলেন।

পাঁচ দিন ধরে চলে বিয়ে

শুধু তাই নয়, এমন ব্যয়বহুল বিয়েতে মোতায়েন করা হয়েছিল প্রায় তিন হাজার নিরাপত্তাকর্মী। রেড্ডি পরিবারের সকল সদস্যরা রাজাদের মতো পোশাক পরেছিলেন এবং সোনা ও হীরার গয়না পরেছিলেন। ৫ দিন ধরে চলে এই বিয়ের অনুষ্ঠান। বিয়ের মেনুতেও অতিথিদের বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছিল। প্রত্যেক অতিথির জন্য রাজকীয় থালির আয়োজন করা হয়েছিল। এতে ১৬ ধরনের মিষ্টি পরিবেশন করা হয়। শুধু তাই নয়, প্রায় ৪০টি রাজকীয় গরুর গাড়ি মোতায়েন করা হয়েছিল অতিথিদের প্রবেশদ্বার থেকে বিয়ের মঞ্চে নিয়ে যাওয়ার জন্য।

মেকআপে খরচ হয়েছে ৩০ লাখ টাকা

কনের মেকআপ করা বিউটিশিয়ানকে বিশেষভাবে মুম্বাই থেকে ডেকে নেওয়া হয়েছিল এবং ৬ লাখ রুপি ফি নেওয়া হয়েছিল। নববধূ ছাড়াও, বেঙ্গালুরুর ৫০ টিরও বেশি বিখ্যাত মেক-আপ শিল্পীকে অন্যান্য অতিথিদের জন্যও ভাড়া করা হয়েছিল, যার জন্য ৩০ লক্ষ টাকারও বেশি ব্যয় হয়েছিল।

ডিজাইনার নীতা লুল্লা শাড়িটি প্রস্তুত করেছিলেন

আমরা আপনাকে বলি যে ব্রাহ্মণী রেড্ডি বিবাহে সোনার সুতো দিয়ে তৈরি একটি সুন্দর লাল কাঞ্জিভরম শাড়ি পরেছিলেন। এই শাড়িটি ডিজাইন করেছেন বিখ্যাত ডিজাইনার নীতা লুল্লা। এর দাম ছিল প্রায় ১৭ কোটি টাকা। ব্রাহ্মণি রেড্ডি বিয়েতে শাড়ির সাথে মিলে ২৫ কোটি টাকার একটি ডায়মন্ড চোকার নেকলেস পরেছিলেন।

আমন্ত্রণের জন্য এলসিডি স্ক্রিন প্লেয়িং কার্ড তৈরি করা হয়েছিল

এছাড়াও তিনি পাঁচডালা, মাং টিক্কা, কামার বাঁধ এবং চুলের আনুষাঙ্গিক সহ অনেক অলংকার পরতেন। ব্রাহ্মণী রেড্ডির সমস্ত গহনার মূল্য আনুমানিক ৯০ কোটি টাকা। বিয়ের নিমন্ত্রণের জন্য একটি এলসিডি স্ক্রিন প্লেয়িং কার্ড তৈরি করা হয়েছিল।

বেঙ্গালুরুর প্যালেস গ্রাউন্ডে বিয়ের অনুষ্ঠান হয়

বেঙ্গালুরুর প্যালেস গ্রাউন্ডে এই বিয়ের অনুষ্ঠান হয়। বিয়ের অতিথিদের ৪০টি বিলাসবহুল গরুর গাড়িতে করে ভিতরের গেট থেকে নিয়ে যাওয়া হয়। বলিউডের শিল্প পরিচালকরা বিজয়নগর শৈলীর মন্দিরের অনেক সেট স্থাপন করেছিলেন। খাওয়ার জায়গা বেল্লারি গ্রামের মতো তৈরি করা হয়েছিল। আসলে, বেল্লারি রেড্ডির বাড়ি। গালি জনার্ধন রেড্ডি শুধু একজন নেতাই নন, একজন খনি ব্যবসায়ীও। তিনি কল্যাণ রাজ্য প্রগতি পক্ষের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতিও।

আদালত সম্পত্তি জব্দ করার নির্দেশ দিয়েছেন

বর্তমানে তিনি গঙ্গাবতী বিধানসভা কেন্দ্র থেকে কর্ণাটক বিধানসভার সদস্য। পরে খনি কেলেঙ্কারিতে জনার্দন রেড্ডির নাম উঠে আসে। বেঙ্গালুরুতে একটি বিশেষ আদালত, ১২ই জুন, ২০২৩-এ, বেল্লারিতে অবৈধ লৌহ আকরিক খনির কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত জি.কে গ্রেপ্তার করেছিল। জনার্ধন রেড্ডি এবং তার স্ত্রী জি. লক্ষ্মী অরুণার মোট ৮২টি স্থাবর সম্পত্তি সংযুক্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

We’re now on WhatsApp- Click to join

খনি কেলেঙ্কারিতে মন্ত্রীও জেলে গেছেন

সিবিআই সংযুক্তির দাবিতে ২০২২ সালে একটি ফৌজদারি পিটিশন দায়ের করেছিল। সংযুক্ত করা সম্পত্তির মূল্য ৬৫.০৫ কোটি টাকা বলা হয়েছিল। খনি কেলেঙ্কারিতে কারাগারে থাকা জি. জনার্ধন রেড্ডির মেয়ের বিয়েতে করা এই অযথা খরচের বিষয়টিও বিরোধী দলগুলি সংসদে একটি ইস্যু উত্থাপন করেছিল। জনার্দন রেড্ডির মেয়ের বিয়ে হয়েছিল নোটবন্দির পরপরই।

কংগ্রেস-সহ সব বিরোধী দলই নিশানা করেছিল

এমন পরিস্থিতিতে জনার্দন রেড্ডি কর্ণাটকের বিজেপি সরকারে মন্ত্রী ছিলেন বলে কংগ্রেস সহ সমস্ত বিরোধী দল তাকে নিশানা করেছিল। তৎকালীন কংগ্রেস সাংসদ আনন্দ শর্মা সংসদে সরকারকে প্রশ্ন করেছিলেন যে জনার্ধন রেড্ডি বিয়েতে খরচ করার জন্য ৫০০ কোটি টাকা কোথা থেকে পেলেন? মায়াবতী সহ অনেক নেতা বিয়েতে অতিরিক্ত ব্যয় নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন।

এইরকম আরও জীবনধারার প্রতিবেদন পেতে ওয়ান ওয়ার্ল্ড নিউজ বাংলার সাথে যুক্ত থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.