West Bengal Panchayat Election 2023: তৃণমূলকে মনোনয়নপত্র হোম ডেলিভারি করছে প্রশাসন, এইদিকে বিরোধী প্রার্থীদের মিলছে না মনোনয়ন, এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী

West Bengal Panchayat Election 2023: তিনি একটি ভিডিও ফুটেজ শেয়ার করেছেন নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে

হাইলাইটস:

• রাজ্যজুড়ে নানা প্রান্ত থেকে মনোনয়নপত্র জমা নিয়ে, নানা অভিযোগ সামনে এসেছে

• এবার এই ব্যাপারে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী

• তিনি তাঁর টুইটারে এই বিষয়ে একটি ভিডিও প্রকাশ্যে এনেছেন

West Bengal Panchayat Election 2023: গত সপ্তাহেই রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করেছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। আগামী ৮ই জুলাই সারা রাজ্যজুড়ে একদফায় পঞ্চায়েত ভোট হবে। এইদিকে যেমন পঞ্চায়েত নির্বাচনের দামামা বেজে গেছে, অন্যদিকে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীও একের পর এক বিস্ফোরক অভিযোগ করছেন।

বিরোধী দলনেতার অভিযোগ, “পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিরোধী প্রার্থীরা দীর্ঘ সময় ধরে বিডিও অফিসে লাইন দিয়ে অপেক্ষা করলেও তাঁদের মিলছে না মনোনয়নপত্র কিংবা ডিসিআর (ডুপ্লিকেট কার্বন রসিদ)। অযথা হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে তাঁদের। এইদিকে শাসক দল তৃণমূলের জন্য আলাদা নিয়মের ছবি সামনে আসছে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে।” এমনই এক চঞ্চল্যকর ভিডিও সামনে এনে টুইটারে পোস্ট করলেন তিনি।

পঞ্চায়েত নির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষণা হতেই শুরু হয়ে গেছে রাজ্যের বিভিন্ন ব্লকে মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া। শাসক এবং বিরোধী দলের প্রতিনিধিরা মনোনয়ন পত্র তুলতে পৌঁছে যাচ্ছেন জেলার বিডিও অফিসে। তবে সেখানে বিরোধী প্রার্থীরা বাকি হয়রানির শিকার হচ্ছেন এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। পঞ্চায়েত ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ব্যবহার নিয়ে অনেক আগেই সরব হয়েছিলেন তিনি। এরপর নির্বাচন কমিশন এবং রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ তুলছেন তিনি।

শুধু অভিযোগ নয়, এবার এক চঞ্চল্যকর ভিডিও সামনে এনেছেন তিনি। ভিডিওটি তিনি তাঁর টুইটারে পোস্ট করেছেন। তার সাথে আক্রমণ করেছেন রাজ্যের শাসকদলকে। তিনি বলেছেন, “তৃণমূল প্রার্থীদের জন্য মনোনয়নপত্র হোম ডেলিভারি করছে প্রশাসন।” তাঁর পোস্ট করা ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে বাঁকুড়া জেলার শালতোড়া ব্লক অফিসে মনোনয়ন পত্র তোলা সংক্রান্ত একটি ভিডিও। এই ভিডিওটি মূলত তর্কাতর্কির একটি ভিডিও, যেখানে শুভেন্দু অধিকারীর কথায়, “তৃণমূল কংগ্রেসের বাঁকুড়া জেলার তিলুরি অঞ্চল সভাপতি তপন চক্রবর্তী শালতোড়া বিডিও অফিস থেকে প্রচুর পরিমাণে মনোনয়নপত্র ও ডিসিআর সংগ্রহ করছেন।” এখানেই তিনি প্রশাসনিক কর্মীদের তৃণমূলের সেবক বলে দাবি করেছেন।

টুইটে তিনি সরাসরি আক্রমণ করেছেন রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসকে। তিনি টুইটে লিখেছেন, “মমতার পুলিশের সঙ্গে এবং তৃণমূলের গুন্ডাদের বাধা ও প্রতিবন্ধকতা মোকাবিলা করে, যখন বিরোধী দলের প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র সংগ্রহের জন্য বিডিও অফিসে পৌঁছচ্ছেন, তাঁদের দীর্ঘক্ষণ সারিবদ্ধভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে। যদি তাঁরা ভাগ্যবান হন, তবে কয়েক ঘন্টা পরে তাঁদের মনোনয়নপত্র এবং ডিসিআর হস্তান্তর করা হবে। অন্যথায় তাঁদের জানানো হবে যে, দুপুর ৩টা বেজে গিয়েছে। তাই এখন কোনও অফিসিয়াল কাজ করা সম্ভব হবে না বা পর্যাপ্ত নথি নেই এবং তাঁরা মনোনয়নপত্র হস্তান্তর করতে প্রস্তুত নয় এবং প্রার্থীদের পরের দিন আবার আসতে বলা হচ্ছে।”

এখানেই শেষ না, তিনি আরও অভিযোগ করেছেন, “তবে রাজ্যের শাসকদলের ক্ষেত্রে আলাদা নিয়ম রয়েছে।” এরপরই তিনি বাঁকুড়া জেলার প্রশাসনকে তৃণমূল প্রার্থীদের জন্য মনোনয়নপত্রের “হোম ডেলিভারির” সুবিধা দিচ্ছে৷ বলে আক্রমণও করেছেন। এই প্রসঙ্গে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের নির্দেশিকার বিষয়টিও উল্লেখ করেছেন তিনি।

শুভেন্দু অধিকারী রাজ্য নির্বাচন কমিশন কর্তৃক জারি করা “রিটার্নিং অফিসারদের জন্য হ্যান্ডবুক” (পঞ্চায়েত নির্বাচন) এর ১৩ পৃষ্ঠার একটি ছবিও পোস্ট করেছেন তাঁর টুইটার হ্যান্ডেলে। এই পৃষ্ঠায় স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা হয়েছে, একজন ব্যক্তিকে ৪ জনের বেশি মনোনয়নপত্র দেওয়া যাবে না। তা সত্ত্বেও তৃণমূল কর্মীরা কীভাবে গোছা গোছা মনোনয়নপত্র তুলে নিচ্ছেন এই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। যদিও বিজেপির এই অভিযোগ উড়িয়ে দিচ্ছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। তাঁদের মতে, এই অভিযোগটি একেবারেই ভিত্তিহীন।

এইরকম রাজনৈতিক বিষয়ক প্রতিবেদন পেতে ওয়ান ওয়ার্ল্ড নিউজ বাংলার সাথে যুক্ত থাকুন।

Sanjana Chakraborty

My name is Sanjana Chakraborty. I'm a content writer. Writing is my passion. I studied literature, so I love writing.

Leave a Reply

Your email address will not be published.