জীবনধারা

যুব সমাজের নবজাগরণের পথিক স্বামী বিবেকানন্দের আজ জন্মদিন

স্বামীজীর জন্মদিন উপলক্ষ্যে রাজ্যজুড়ে পালিত হচ্ছে উৎসব

আজ যুবনায়ক স্বামী বিবেকানন্দের ৬০তম জন্মদিন। কলকাতার নরেন্দ্রনাথ দত্ত থেকে স্বামী বিবেকানন্দ হয়ে ওঠা যুবকের জীবনের গল্প আমরা সকলেই জানি। মহান এই বাঙালির জন্ম হয়েছিল ১২ই জানুয়ারি ১৮৬৩ সালে। কলকাতার এক উচ্চবিত্ত বাঙালি পরিবারে জন্ম হয় নরেন্দ্রনাথ দত্তের ৷ তাঁর বাবা বিশ্বনাথ দত্ত ছিলেন কলকাতা হাইকোর্টের একজন আইনজীবী। ছোট থেকেই তাঁর যুক্তিবিদ্যা সকলকে মুগ্ধ করত। জীবনে কঠিন প্রতিকূলতা এলেও কখনও থামেননি স্বামীজি। বাবার মৃত্যুর পর নরেন্দ্রনাথের পরিবারকে এক অনিশ্চয়তা গ্রাস করেছিল। বি.এল.এ পড়া থামিয়ে একুশ বছর বয়সেই চাকরির খোঁজে বেরিয়ে পড়েন তিনি। কিন্তু চাকরির বাজারের প্রবল প্রতিযোগিতায় যেন দিশাহীন হয়ে পড়েছিলেন। আগামী দিনে যিনি বিশ্ববাসীকে পথ দেখাবেন সে সময় কার্যত তিনিই দারিদ্রের অন্ধকার দেখেছিলেন। মাঝে অনেক চেষ্টার পর তিনি মেট্রোপলিটন ইনস্টিটিউশনের বউবাজার শাখায় প্রধান শিক্ষকের পদে নিযুক্ত হন।

ছোটবেলা থেকেই স্বামীজী মনে করতেন যে, মানুষের সেবাই ঈশ্বরের সেবার সমান ৷ রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব ছিলেন তাঁর আধ্যাত্মিকতার গুরু। ১৮৮১ সালে শ্রীরামকৃষ্ণ দেবের সঙ্গে প্রথম দেখা হয়েছিল তাঁর। যদিও শ্রীরামকৃষ্ণ তাঁর প্রিয় শিষ্যকে সরাসরি সন্ন্যাস দেননি। তিনি নরেন সহ আরও কয়েকজন ভক্তদের হাতে শুধু গেরুয়া বসন তুলে দিয়েছিলেন। শ্রীরামকৃষ্ণদেবের প্রয়াণের পর ১৮৮৭ সালের জানুয়ারি মাসে নিজেই বিরজা হোম এবং অন্যান্য ক্রিয়াকলাপ করে আনুষ্ঠানিকভাবে সেই গেরুয়া ধারণ করেছিলেন স্বামীজি। শ্রীরামকৃষ্ণ দেব বলেছিলেন, ‘নরেন জগৎ মাতাবে।’ তাঁর এই কথাই কয়েক বছরের মধ্যে অক্ষরে অক্ষরে মিলে যায়। ১৮৯৩ সালে বিশ্ব ধর্ম মহাসভায় ভারতবর্ষ ও হিন্দু ধর্মের প্রতিনিধিত্ব করেন স্বামী বিবেকানন্দ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো বিশ্ব ধর্ম সম্মেলনে তাঁর বিখ্যাত বক্তৃতার মাধ্যমেই তিনি পাশ্চাত্য সমাজে হিন্দুধর্মের কার্যত প্রথম মাহাত্ম্য প্রচার করেন। তাঁর তেজময়ী ভাষণে মুগ্ধ হয়ে যান উপস্থিত শ্রোতারা। বিদেশের মাটিতেও বহু মানুষ তাঁর পরম অনুরাগী হয়ে ওঠেন।

রামকৃষ্ণদেবের দেহত্যাগের পরই এক অধিবেশনে স্বামীজী রামকৃষ্ণ মিশন অ্যাসোসিয়েশন গঠনের প্রস্তাব রাখেন। নিজের হাতেই তিনি মিশন গঠনের প্রস্তাব এবং নিয়মাবলির খসড়া তৈরি করেন। ১৯০৯ সালে আইনি স্বীকৃতি পায় রামকৃষ্ণ মঠ। ধর্ম ও শিক্ষার সঙ্গে মানবজাতির সেবার উদ্দেশ্যেই রামকৃষ্ণ মিশনের যাত্রা শুরু হয়।

আজ স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিন উপলক্ষ্যে ট্যুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি আজ ভার্চুয়াল মাধ্যমে বক্তৃতা দেবেন প্রধানমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও ট্যুইটের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন স্বামীজীকে।

আজ স্বামীজীকে শ্রদ্ধা জানাতে রাজ্যজুড়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। উৎসব মুখর হয়ে উঠেছে বেলুড় মঠ-সহ অন্যান্য রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনও। দিনটি বিবেক চেতনা উৎসব হিসেবে পালন করছে রাজ্য সরকার। সূত্রের খবর আজ স্বামীজীর জন্মভিটেতে আসতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উনিশ শতকের চোখধাঁধানো ধর্ম ও সমাজ ভাবনা। শতাব্দী বদলালেও, বদল হয়নি সেই প্রেক্ষাপটের। গোটা দেশের নিরিখে তাই আজও প্রাসঙ্গিক স্বামী বিবেকানন্দ।

Sanjana Chakraborty

My name is Sanjana Chakraborty. I'm a content writer. Writing is my passion. I studied literature, so I love writing.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button