খাবারের রেসিপি

বাঙালিয়ানা স্বাদের পটলের দোরমা বা দোলমা রেসিপি

চিংড়ি মাছ দিয়ে পটল, আহা! অপূর্ব স্বাদ

নিরামিষ হোক বা আমিষ, ভোজনরসিক বাঙালি খেতে ভীষণ ভালোবাসে। আর যদি হয় টাটকা সবজির রান্না তাহলে ব্যাপারটা জমে যায়। এখানে আমরা আপনাদের জন্য চিংড়ি মাছ দিয়ে তৈরি পটলের দোরমা বা দোলমা রেসিপিটি নিয়ে এসেছি। রেসিপিটি দেখে নিন-

পটলের দোরমা বা দোলমার উপকরণ:

•পটল ৫০০ গ্রাম

পুর বানানোর জন্য:

•চিংড়ি মাছ ৩০০ গ্রাম

•পেঁয়াজ ২টি (কুচি)

•টমেটো ১টি (কুচি)

•আদা ও রসুন বাটা ১/২ চামচ

•ধনে গুঁড়ো আর জিরে গুঁড়ো ১/২ চামচ

•গরম মশলা গুঁড়ো ১/৪ চামচ

•হলুদ গুঁড়ো সামান্য

•গোটা জিরে সামান্য

•নারকেল কোড়া ২ চামচ

•কাঁচা লঙ্কা ২টি (বাটা)

•লঙ্কা গুঁড়ো ১/৪ চামচ

•নুন পরিমাণমত

•সামান্য ধনেপাতা কুচি

•পরিমানমত সরষের তেল

•সামান্য কাজুবাদাম কুচি

গ্রেভি বানানোর জন্য:

•টমেটো ১টি (কুচি)

•পেঁয়াজ ২টি (কুচি)

•এলাচ ৩টি

•লবঙ্গ ৪টি

•দারচিনি ১টুকরো

•হলুদ গুঁড়ো সামান্য

•লঙ্কা গুঁড়ো ১ চামচ ঘি ১ চামচ।

•নুন পরিমাণমত

•সরিষার তেল পরিমানমত

•টক দই ৩ টেবিল চামচ

•সামান্য ধনেপাতা কুচি

•কাঁচা লঙ্কা ২টি

•আদা ও রসুন বাটা ১ চামচ

•জিরে বাটা ১/২ চামচ

•পোস্তবাটা ২ চা চামচ

•কাজুবাদাম বাটা ২ চামচ

•ঘি ১ চামচ

পটলের দোরমা বা দোলমা তৈরির পদ্ধতি:

পুর বানানোর জন্য:

•প্রথমে পটলগুলি ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। পটলের দু’ধার কেটে ফেলে দিতে হবে। এরপর একবার মাঝ বরাবর চিঁরে দিতে হবে, কিন্তু দু’ধার চিঁরলে হবে না। কারন পটল গোটা থাকবে, ভেতরে পুর দেওয়ার জন্য। একটা চামচ এর পেছন দিয়ে, কোনও তাড়াহুড়ো না করে সাবধানে পটলের বীজ বার করে নিতে হবে। এই ভাবে পটলগুলি তৈরি করে নিতে হবে পুর ভরার জন্য।

•এরপর চিংড়ি মাছগুলি কুচি কুচি করে কেটে নিতে হবে।

•তারপর একটি প্যানে তেল গরম করতে দিতে হবে। তেল গরম হয়ে এলে তাতে প্রথমে দিতে হবে গোটা জিরে আর পেঁয়াজ কুচি।

•পেঁয়াজ অর্ধেক ভাজা হলে দিয়ে দিতে হবে চিংড়ি মাছগুলি।

•তারপর দিতে হবে পরিমাণমত নুন আর হলুদ গুঁড়ো।

•পেঁয়াজ আর চিংড়ি মাছগুলি এবার ভালোভাবে ভাজতে হবে।

•এরপর তাতে আদা-রসুন বাটা, কাঁচা লঙ্কা বাটা, জিরে-ধনে গুঁড়ো, লঙ্কা গুঁড়ো দিতে হবে। তারপর মশলাটিতে সামান্য জল যোগ করে ভালোভাবে কষাতে হবে।

•মশলাটি ভালোভাবে ভাজা হলে তাতে দিতে হবে টমেটো কুচি, কাজুবাদাম কুচি, নাড়কেল কোড়া, সামান্য ধনেপাতা কুচিএবং গরম মশলা গুঁড়ো।

•তারপর মাঝারি আঁচে রেখে ১০ মিনিটের জন্য ঢাকা দিতে হবে।

•চিংড়ি মাছগুলি সেদ্ধ হয়ে এসেই পুর তৈরি হয়ে যাবে।

•তারপর একটি পাত্রে পুরটি রেখে ঠান্ডা করতে দিতে হবে। পুরটি ঠাণ্ডা হলে চামচ দিয়ে পটলের ভেতর দিতে হবে।

•ভালোভাবে চেপে চেপে পুর ভরতে পটলের ভেতর যাতে ভাজবার সময় পুর বেরিয়ে না আসে। এক টুকরো সুতো দিয়েও জড়িয়ে দিতে পারেন।

•পুর ভরা পটল ভাজবার জন্য আবারও প্যানে তেল গরম করতে হবে। তেল গরম হলে এক এক করে দিয়ে দিতে হবে পুর ভরা পটলগুলি।

•পটলগুলি লাল লাল করে ভেজে তুলে নিতে হবে।

গ্রেভি বানানোর জন্য:

•ওই পটল ভাজার তেলের মধ্যে দিয়ে দিতে হবে এলাচ, লবঙ্গ আর দারচিনি।

•তারপর তাতে দিতে হবে পেঁয়াজ কুচি। পেঁয়াজগুলি ভালোভাবে ভাজতে হবে।

•তারপর তাতে দিতে হবে টমেটো কুচি, কাঁচা লঙ্কা, আদা-রসুন বাটা, জিরে বাটা, লঙ্কা-হলুদ গুঁড়ো।

•মশালাগুলি ভালো করে কষানো হলে তাতে দিতে হবে কিসমিস, কাজুবাদাম বাটা, পোস্ত বাটা আর টক দই। এবং সব উপকরণগুলি আরও ভালোভাবে কষিয়ে নিতে হবে।

•মশলা থেকে তেল ছেড়ে দিলে দিয়ে দিতে হবে সামান্য জল এবং দিতে হবে পরিমানমত নুন।

•ঝোল ফুটে উঠলে তাতে দিয়ে দিতে হবে পুর ভরা ভাজা পটলগুলি, তবে সুতো খুলে ফেলে দিতে হবে।

•এরপর ১০ মিনিটের জন্য ঢাকা দিতে হবে রান্নাটি।

•ঢাকা খোলার আগে দিতে হবে ধনেপাতা কুচি আর সামান্য ঘি।

•এইগুলি ভালো মিশে গেলেই পটলের দরমা তৈরি। এরপর এটি আপনি দুপুরের গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করতে পারেন।

Sanjana Chakraborty

My name is Sanjana Chakraborty. I'm a content writer. Writing is my passion. I studied literature, so I love writing.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button