স্বাস্থ্য

দাঁত হলুদ হওয়ার পিছনে কী কী রোগ দায়ী হতে পারে?

দাঁত হলুদ হতে শুরু করলে এখনই সতর্ক হন

এখনকার দিনে ছোট বড়ো সকলেরই দাঁত হলুদ হওয়ার সমস্যায় ভোগেন। অতিরিক্ত মশলাদার খাবার, ধূমপান, অ্যালকোহল, সোডা পান করা ও অযত্নে দাঁতের রং হলুদ হয়ে যায়। এতদিন আমরা তাই-ই জানতাম, কিন্তু এই দাঁত হলুদ হওয়ার পিছনে থাকতে পারে কোনো বিপদ সংকেত। যা ধীরে ধীরে দাঁতকে ভঙ্গুর এবং ফাঁপা করে দেয়। ফলে নানা রোগের সৃষ্টি হয়।

জিঞ্জিভাইটিস: জিঞ্জিভাইটিস হল দাঁত হলুদ হওয়ার সবচেয়ে প্রাথমিক কারণ। এই সমস্যাটিকে আবার মাড়ির সংক্রমণও বলা হয়। মুখের এই রোগে দাঁতে জমতে শুরু করে ব্যাকটেরিয়া। ফলে মাড়িও ফুলে যায়। এইরকম সমস্যা হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

​যকৃতের রোগ: যকৃতের সমস্যার কারণেও দাঁত হলুদ হয়ে যায়। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে যে, রোগী যখন জন্ডিসের মতো রোগে আক্রান্ত হয়, তখন শরীরে বিলিরুবিন বাড়তে থাকে। যার কারণে ত্বক, চোখ ও দাঁত হলুদ হয়ে যেতে পারে।

ডেন্টিনোজেনেসিস: ডেন্টিনোজেনেসিস হল অসম্পূর্ণতা দাঁতের একটি ব্যাধি। এতে আপনার দাঁতের রং বদল হতে শুরু করে। এই রঙ হলুদ-বাদামী, নীল-ধূসরের মতো হতে পারে। এই রোগে দাঁত দুর্বল হয়ে পড়ে এবং ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা অনেকাংশে বেড়ে যায়।

ক্যানকার ঘা: ক্যানকার ঘা হল ছোট ফোসকা lযা আপনার মুখের ভিতরে আসতে আসতে বিকাশ লাভ করে। এই ফোসকা মুখের তালুতেও হতে পারে। ক্যানকার ঘা দেখতে লাল এবং হলুদ হতে পারে। এই সমস্যাটি আপনার মুখের স্বাস্থ্যকে নষ্ট করে এবং দাঁতের রং-ও পরিবর্তন করতে পারে।

হলুদ দাঁত হয়ে যাওয়ার অন্যান্য কারণ:

এই রোগগুলি ছাড়াও আরও কিছু সমস্যাও দাঁতকে হলুদ করে দেয়। চিকিৎসকরা বলেন যে, কিছু ওষুধ, গর্ভাবস্থার সংক্রমণ, কেমোথেরাপি, ট্রমা ইত্যাদির কারণেও দাঁত হলুদ হতে পারে।

কী ভাবে দাঁতের যত্ন নেবেন?

দাঁতকে মুক্তোর মতো সাদা রাখতে আপনাকে নিয়মিত ওরাল চেকআপ করাতে হবে, যাতে দাঁতে কোনো রোগ হলে সময় মতো তার চিকিৎসা করা সম্ভব হয়। তাছাড়া ধূমপান এবং মদ্যপান ত্যাগ করা উচিত, কারণ এগুলি আপনার দাঁতের ক্ষতি করে এবং দাঁতকে হলুদ করে দেয়।

প্রতিদিন অন্তত দু-বার দাঁত ব্রাশ করা উচিত এবং একটি অ্যান্টিসেপটিক মাউথওয়াশ ব্যবহার করা উচিত।

Sanjana Chakraborty

My name is Sanjana Chakraborty. I'm a content writer. Writing is my passion. I studied literature, so I love writing.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button