খাবারের রেসিপি

ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানিয়ে ফেলুন বাসন্তী পোলাও

বাসন্তী পোলাও বাঙালির অত্যন্ত প্রিয় খাদ্য।

বাঙালি মানেই হল ভোজনরসিক, আর এই ভোজনরসিক বাঙালির অত্যন্ত প্রিয় খাবার পোলাও। কোনো উৎসব অনুষ্ঠান আয়োজন পোলাও ছাড়া চলে না। বাঙালির সেরা পছন্দ হল বাসন্তী পোলাও৷ নিরামিষ ছানার ডালনা বা কষা পাঁঠার মাংসের সাথে দারুণ জমে যায় এই পোলাও৷

বাসন্তী পোলাও তৈরি করার জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ:

•২ কেজি গোবিন্দভোগ চাল

•১০টি তেজপাতা

•১৫টি ছোট এলাচ

•৪টি চার ইঞ্চি মাপের দারুচিনি

•১৬টি লবঙ্গ

•২০টি জয়িত্রী

•১ চামচ হলুদগুঁড়ো

•পরিমাণ মত কাজু ও কিশমিশ

•স্বাদ অনুযায়ী লবণ

•পরিমাণ মত জল

•স্বাদ মত চিনি

•৫০০ গ্রাম ঘি

বাসন্তী পোলাও তৈরি করার পদ্ধতি:

১. খুব ভালো করে ঠাণ্ডা জলে গোবিন্দভোগ চাল ধুয়ে নিন৷ তারপর একটা বড়ো থালায় চালের জলটা ঝরিয়ে শুকিয়ে নিন।

২. তারপর ২০ মিনিট পর ওই চালের সঙ্গে ঘি, হলুদ, স্বাদ অনুযায়ী নুন আর সামান্য গরম মশলা গুঁড়ো দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। খেয়াল রাখুন চাল যাতে ভেঙে না যায়।

৩. এই মিশ্রণটি এক ঘণ্টার জন্য ম্যারিনেট করুন।

৪. এবার কড়াইতে ২ টেবিল চামচ ঘি গরম করুন, তাতে কাজু আর কিশমিশগুলি ভালো করে ভেজে নিন সোনালি রং হওয়া পর্যন্ত। ভাজা হয়ে গেলে কাজু আর কিশমিশটা এক সাইটে রেখে দিন।

৫. ওই ঘিয়ের মধ্যে তেজপাতা আর গোটা গরম মশলা ফোড়ন দিন। মশলার গন্ধ বের হতে শুরু করলে তাতে ম্যারিনেট করে রাখা চালগুলি দিয়ে দিন এবং ভাল করে ভাজতে থাকুন।

৬. এরপর এতে ভেজে রাখা কাজু আর কিশমিশটা দিয়ে দিন। এবার এতে পরিমাণ মত চিনি দিন।

৭. তারপর চালগুলি সেদ্ধ হওয়ার জন্য পরিমাণ মত জল দিয়ে ঢাকা দিয়ে দিন। অন্তত ১৫ মিনিট ফুটতে দিন।

৮. তারপর ঢাকনা সরিয়ে দেখুন যে পোলাও তৈরি হয়ে গেছে এবং ভাতটা ঝুরঝুরে হয়েছে।

৯. চাল সেদ্ধ হলে নামানোর আগে ২ টেবিল চামচ ঘি ছড়িয়ে দিন। আপনি যদি চান কেওড়া জল বা গোলাপ জলও মিশিয়ে দিতে পারেন।

যে কোনো পুজো-পার্বন বা কোনো অনুষ্ঠানের জন্য এই সহজ পদ্ধতিতে বাসন্তী পোলাও বানিয়ে নিন।

Sanjana Chakraborty

My name is Sanjana Chakraborty. I'm a content writer. Writing is my passion. I studied literature, so I love writing.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button