জীবনধারা

একটি ভালো রাতের ঘুমের জন্য এই অভ্যাসগুলি এড়িয়ে চলুন

এখানে কিছু রাতের অভ্যাস রয়েছে যা আপনি ভুল করছেন

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে আমরা কিছু অভ্যাস অনুসরণ করি যা ক্ষতিকারক বলে মনে হয়। ডিনার হল দিনের সবচেয়ে বিতর্কিত খাবার। অনেকে রাতের বেলা ভুল অভ্যাস অনুসরণ করে। আমাদের দৈনন্দিন জীবনের ব্যস্ততার মধ্যে আমরা ঘুমাতে যাওয়ার আগে কিছু ভুল অভ্যাস এবং মশালাদার খাবার খেয়ে ফেলি।

এখানে কিছু রাতের অভ্যাস রয়েছে যা আপনি ভুল করছেন :

দেরিতে ডিনার :

খাবার হজম করতে আমাদের শরীরের কিছু সময়ের প্রয়োজন। রাতে দেরি করে খাওয়া হজমকে ব্যাহত করতে পারে এবং আপনাকে কম তৃপ্তি বোধ করতে পারে যা আপনার ওজন কমাতে বাধা দেয়।

রাতের খাবার রাত ৮টার মধ্যে করতে হবে। এতে শরীর সহজে খাবার হজম করতে পারবে। ক্লান্তি এবং কার্যকলাপের অভাবের কারণে সন্ধ্যার সময় আমাদের শরীরের বিপাক প্রক্রিয়া ধীর হয়ে যায়।

প্রারম্ভিক এবং সময়মত ডিনার আমাদের সিস্টেমের জন্য আমাদের খাবার প্রক্রিয়া করা সহজ করে তোলে। এটি আমাদের রাতে ভালো ঘুমের অনুমতি দেয়।

জাঙ্ক ফুড বা ভারী খাবার খাওয়া :

জাঙ্ক ফুড সমন্বিত ডিনার রাতের বেলার জন্য একদমই খাওয়া উচিত না। এই খাবারগুলি প্রক্রিয়াজাত, উচ্চ ক্যালোরি এবং জটিল কার্বোহাইড্রেট ধারণ করে। এগুলি খাবারগুলি হজম করতে বেশি সময় নেয়।

স্যুপ, স্যালাড বা উচ্চ প্রোটিন এবং কম কার্বোহাইড্রেট সহ অন্য কোনো বিকল্প বেছে নেওয়া উচিত। এগুলি আপনার সিস্টেমে হালকা এবং আপনাকে পূর্ণ রাখার পাশাপাশি সঠিক পুষ্টি সরবরাহ করবে।

অতিরিক্ত খাওয়া বা কম খাওয়া :

আমাদের শরীর আমাদের প্রয়োজনীয় খাদ্য এবং পুষ্টির পরিমাণ সম্পর্কে ইঙ্গিত দেয়। অতিরিক্ত খাওয়া বা খাবার কম খাওয়ার ফলে আমাদের মেজাজ খিটখিটে, অলসতা বা শক্তির অভার দেখা যায় যা আমাদের ভারসাম্য নষ্ট করতে পারে। সুষম খাদ্যের গুরুত্ব আমরা সবাই জানি। অতএব,আমরা কতটা খাবার খাচ্ছি সে সম্পর্কে সচেতন হওয়া প্রয়োজন। আমাদের পাচনতন্ত্রের উপর কোনো চাপ না ফেলে আমাদের শরীরের সঠিক পুষ্টি দিয়ে চিকিৎসা করা উচিত।

ডিনার-পরবর্তী অন্যান্য ভুল :

আমাদের রাতের খাবারের পরে বিশ্রাম নেওয়ার প্রবণতা রয়েছে। রাতের খাবারের পর শুয়ে থাকা বা অলস হওয়া এড়িয়ে চলতে হবে। রাতের খাবারের পর একটু হাঁটা দরকার। এটি রাতের কার্যকলাপের অভাব ভারসাম্য করতে সাহায্য করে।

কম জল পান করা :

হাইড্রেশনও একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক পালন করে। প্রত্যেকেরই রাতের খাবারের আধা ঘণ্টা আগে এক গ্লাস জল খাওয়া উচিত। যদিও রাতের খাবারের এক ঘন্টা পর জল পান করার পরামর্শ দেওয়া হয়। তবে এটি আমাদের গভীর ঘুমকে প্রভাবিত করতে পারে। আমরা এক গ্লাস দুধের সাথে সামান্য হলুদ, এক চিমটে কালো মরিচ এবং এক চুমুক গরম জল খেতে পারি। আমাদের শরীরকে সারাদিন হাইড্রেটেড রাখতে এই ধরনের স্বাস্থ্যকর অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।

ডিজিটাল স্ক্রিন এক্সপোজার :

ঘুমানোর আগে মোবাইল ফোন, কম্পিউটার বা টেলিভিশনের মতো ডিজিটাল স্ক্রিন ব্যবহার করা উচিত নয়। এগুলি আমাদের মনকে সক্রিয় রাখবে এবং আমাদের ঘুমের সময় বিলম্বিত করতে পারে। কারণ আমরা দীর্ঘক্ষণ বসে থাকি। এর পরিবর্তে পরিবারের সাথে কিছু সময় কাটান এবং প্রিয়জনের সাথে যোগাযোগ করুন।

আমাদের রাতের অভ্যাস সম্পর্কে সতর্কতা অবলম্বন করা আমাদের দীর্ঘমেয়াদে একটি স্বাস্থ্যকর জীবনধারার আশীর্বাদ প্রমাণ হতে পারে।

Sanjana Chakraborty

My name is Sanjana Chakraborty. I'm a content writer. Writing is my passion. I studied literature, so I love writing.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button